বিজয় দিবস প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচে সাবেকদের মিলনমেলা

0
74

ক্রীড়া ডেস্ক।।

মহান বিজয় দিবস এলেই তুলে রাখা ব্যাট-প্যাড পরতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন বাংলাদেশ দলের সাবেক ক্রিকেটাররা। দুই ভাগে ভাগ হয়ে নেমে পড়েন মিরপুরের সবুজ গালিচায়। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি।

শহীদ জুয়েল এবং শহীদ মোশতাক ছিলেন ক্রীড়াপাগল মানুষ। প্রথমজন ক্রিকেটার, দ্বিতীয়জন ছিলেন সংগঠক। ২৫ মার্চ কালরাতে হানাদাররা নৃশংসভাবে হত্যা করে মোশতাক আহমেদকে। এই দুই শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাকে স্মরণ করতেই তাদের নামে ক্রিকেট দল গড়ে সাবেক ক্রিকেটাররা মাঠে নেমে যান।

সোমবার (১৬ ডিসেম্বর) অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচে টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নামে শহীদ জুয়েল একাদশ নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৬২ রান করে। এহসানুল হক সেজান দলের পক্ষে সর্বাধিক ৫২ রান করেন। এছাড়া সজল চৌধুরী অপরাজিত ৪৬ ও শাহরিয়ার হোসেন বিদ্যুৎ ৩২ রান করেন।

শহীদ মোস্তাক একাদশের পক্ষে শফিউদ্দিন আহমেদ বাবু ৪ ওভারে ২৭ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট। একটি করে উইকেট পান তারেক আজিজ খান ও মুশফিকুর রহমান বাবু।

১৬৩ রানের জয়ের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১০ বল বাকি থাকতেই ৭ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে শহীদ মোস্তাক একাদশ। মোহাম্মদ রফিক ৩৯ বলে ৫ চার ও ৩ ছক্কার মারে ৮১ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলে দলের জয় নিশ্চিত করেন। মেহরাব হোসেন অপি ৪৮ রানে অপরাজিত ছিলেন।

শহীদ জুয়েল একাদশের হয়ে একটি করে উইকেট লাভ করেন খালেদ মাহমুদ সুজন, এনামুল হক মনি ও মাহমুদুল হাসান রানা।

শহীদ জুয়েল একাদশ:  নাইমুর রহমান দুর্জয়, হাবিবুল বাশার সুমন, মাহমুদুল হাসান রানা, আকরাম খান, মিনহাজুল আবেদীন নান্নু, শাহরিয়ার হোসেন বিদ্যুৎ, এনামুল হক মনি, সজল চৌধুরী, খালেদ মাহমুদ সুজন, নাসির আহমেদ নাসু, এহসানুল হক সেজান, নিয়ামুর রশিদ রাহুল, মোহাম্মদ সেলিম (উইকেটরক্ষক), হাসিবুল হোসেন শান্ত।

ম্যানেজার: গোলাম ফারুক সুরু

শহীদ মোশতাক একাদশ:  মেহরাব হোসেন অপি, জাহাঙ্গীর আলম, হারুনুর রশিদ লিটন, আনোয়ার হোসেন (উইকেটরক্ষক), তারেক আজিজ খান, মুশফিকুর রহমান বাবু, মোর্শেদ আলী খান, মোহাম্মদ রফিক, আনেয়ার হোসেন মনির, শফিউদ্দিন আহমেদ বাবু, ফারুক আহমেদ, জাভেদ ওমর বেলিম, মোহাম্মদ আলি, খালেদ মাসুদ পাইলট।

ম্যানেজার: রকিবুল হাসান

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here