ফেসবুকে ও ফাঁদ‌ পাতা হয়?

0
104

মোঃ ইকবাল হোসেন।

ফেসবুকে ও ফাঁদ‌ পাতা হয়….
কে কোনোটাতে like comments করে তা তক্কে তক্কে নজরে রাখা হয়। গড়মিল হলে caught খায়। ফাঁদ বিছাইয়া রাখা হয়।
শাস্তি পদ্ধতি অভিনব। অভিযুক্ত টেরও পায় না। কোনদিনই না। শাস্তি হয় তবুও।

অন্যদিকে আরেকটি গ্রুপ- যাদেরকে আমরা কেউ বলি হাইব্রিড,কেউ বলি কাউয়া,কেউ বলি চামচা,কেউ বলি আমারলীগ এরা দুই দিন হলো দলে এসে জায়গামতো তেলবাজি করে নিজ নিজ এলাকার দীর্ঘ দিনের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্ধদের বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে সরকারি দলের সুযোগ সুবিধা ভোগের পাশাপাশি মেঘ না চাইতে বৃস্টির মতো দলের বড় বড় পদও পেয়ে যাচ্চেন,এরা দলের ওয়ার্ড,ইউনিয়ন,উপজেলা কাউকেই তোয়াক্কা করে না, এদের যোগাযোগ সরাসরি হেড অফিস – এরা ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়-” অমুক আমার নেতা,অমুক আমার প্রিয় ভাই, আর কারো টাইম নাই এই টাইপের ।” অবশ্য এ স্ট্যাটাস এখন হট কেক উনারাও পছন্দ করছেন।

মজার বিষয়, এটা নিয়ে এখন পর্যন্ত গবেষনা হয় নি। অথচ ফাঁদ পাতার বিষয়টা মেলাদিন যাবত চলতেছে।

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

লেখক: মোঃ ইকবাল হোসেন

সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা ও চোয়ারম্যানঃ ৪ নং উওর ঝলম ইউনিয়ন পরিষদ,মনোহরগঞ্জ,কুমিল্লা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here