জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শিক আওয়ামী লীগ এর সুরক্ষা চাই

0
54

ডেস্ক রিপোর্ট ।।

“জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর আদর্শিক আওয়ামী লীগ এর সুরক্ষা চাই , জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত দুর্নীতিবাজ ও অনুপ্রবেশকারী মুক্ত আওয়ামী লীগ চাই”

জননেত্রী শেখ হাসিনা’র নির্দেশনা উপেক্ষা করে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে অগ্নিসংযোগকারীর পুত্র,অনুপ্রবেশকারী,ভূমিদস্যু ও নদী দখলবাজকে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হিসাবে নৌকা প্রতীক প্রদানের প্রতিবাদে আজ ১৯ নভেম্বর ২০১৯ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাব এর আব্দুস সালাম হলে(তৃতীয় তলা) সংবাদ সম্মেলন এ উপস্থিত সাংবাদিক বন্ধুদের শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখিত বক্তব্য পাঠ করছি।

প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগণ,

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মহান মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী রাজনৈতিক সংগঠন যার ইতিহাস ও ঐতিহ্য সর্বজনবিদিত।যতবার এই দলটি সরকার পরিচালনা করতে সক্ষম হয়েছে ততবারই বাংলাদেশ বিরোধী দেশী-বিদেশী চক্র ভয়াবহ ষড়যন্ত্রের নীল নকশা বাস্তবায়নের ঘৃণ্য চক্রান্তের স্বীকার হয়েছে।যার প্রেক্ষিতে প্রাণ দিতে হয়েছে স্বপরিবারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে এবং জাতীয় চার নেতা সহ আরো অনেকেই।বর্তমানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় শোষণমুক্ত সমাজ গড়তে দুর্নীতি,মাদক,সন্ত্রাস সহ সকল অনৈতিক কর্মকা-ের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে কার্যক্রম পরিচালনা করছেন যা সর্ব মহলে প্রশংসিত পাশাপাশি নিজ রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এবং এর সকল অঙ্গ/ভ্রাতৃ প্রতিম সংগঠন সমূহে অনুপ্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান গ্রহণের অংশ হিসাবে অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা প্রণয়ন করে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে প্রেরণ করেছেন।

এমতাবস্থায় আমরা প্রত্যক্ষ করছি যে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হিসাবে সম্প্রতি কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি হতে অনুপ্রবেশকারী,ভূমিদস্যু,নদী দখলবাজ এবং মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময় অগ্নিসংযোগকারীর পুত্র আব্দুল খালেককে নৌকা প্রতীক প্রদান করা হয়েছে। জনশ্রুত যে,উক্ত আব্দুল খালেক ইতিপূর্বে শিবিরের সক্রিয় কর্মী এবং সংশ্লিষ্ট জেলা ও উপজেলা বিএনপির সদস্য।

বিশেষ উল্লেখ্য যে, উক্ত ইউনিয়নে প্রার্থী হিসাবে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম নূরুল আমিন হিলালী এর পুত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র ও বিশিষ্ট টিভি সাংবাদিক সালাহ উদ্দিন হেলালী কমল নৌকা প্রতীক প্রার্থনা করলে তৃণমূল হতে নাম প্রেরণ করা হলেও ও তাকে সহ তৃণমূল প্রস্তাবিত অন্য প্রার্থীদের উপেক্ষা করে কোন বিবেচনায় অনুপ্রবেশকারী এবং নদী দখলদার হিসাবে অভিযুক্ত বিতর্কিত ব্যক্তিকে কেন নৌকা প্রতীক প্রদান করা হলো সেটা আমরা জানতে আগ্রহী !

ইতিপূর্বে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক জনাব ওবায়দুল কাদের এমপি মহোদয় এক প্রেস ব্রিফিং এ আওয়ামী লীগের সদস্য হওয়ার ক্ষেত্রে স্বাধীনতা বিরোধী পরিবারের সদস্যরাও অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন মর্মে ঘোষণা দিলে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের পক্ষ থেকে তীব্র প্রতিবাদ ও কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়।

সম্প্রতি সাধারণ সম্পাদক মহোদয় অনুপ্রবেশকারীদের সংজ্ঞায় স্ববিরোধী বক্তব্য দেন বলে আমরা মনে করি।মাননীয় আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর কঠোর নির্দেশনা স্বত্তেও নীতিনির্ধারণী সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অনুপ্রবেশকারীকে মনোনয়ন প্রদান জননেত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তের অবমাননা নয় কি?

উদ্ভুত পরিস্থিতিতে আমাদের দাবী সমূহঃ

(০১) অনতিবিলম্বে আওয়ামী লীগ এবং এর সকল সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন সমূহের সর্ব পর্যায়ে বিভিন্ন সময়ে অনুপ্রবেশকারীদের নাম, পদবী, ঠিকানা সহ পূর্ণাঙ্গ তালিকা সকল গণমাধ্যমে প্রকাশ সহ সংগঠনের পক্ষ থেকে পুস্তিকা আকারে প্রকাশ করা হোক।

(০২) স্বাধীনতা বিরোধীদের সন্তান ও নাতি-নাতনি সহ বিএনপি,জায়ামাত-শিবির চক্রের সদস্য, দূর্নীতিবাজ, মাদক ব্যবসায়ী -সেবন কারী ব্যক্তিদের দলের সর্ব পর্যায়ে সম্মেলনে যাতে প্রার্থী, কাউন্সিলর ও ডেলিগেট হতে না পারে সে ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হোক।

(০৩) অন্যান্য দল থেকে আগত নেতা-কর্মীদের ন্যুনতম ১০ বছর কোনো পদে পদায়ন করা হবে না মর্মে আওয়ামী লীগ এর গঠণতন্ত্রে সুস্পষ্ট ভাবে উল্লেখ করা হোক।

প্রিয় কলম সৈনিক বন্ধুগণ,
আওয়ামী লীগের অতি উৎসাহী অর্থলোভী নেতাদের থেকে সজাগ থাকি,অনুপ্রবেশ ঠেকাতে নিজে উদ্যোগী হই,বংঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মানে জননেত্রী শেখ হাসিনা’র হাতকে শক্তিশালী করতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশ বিনির্মানে আমাদের দাবী পূরণে আপনাদের বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রচারে জোরালো ভূমিকা রাখার আহবান জানিয়ে আজকের সংবাদ সম্মেলন এর লিখিত বক্তব্য সমাপ্ত করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here